সংবাদ শিরোনাম

 

ধর্ষণ মামলায় ময়মনসিংহের হালুয়াঘাট উপজেলার আলোচিত কনটেন্ট ক্রিয়েটর ঈসমাইল হোসেনকে (৩৫) গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতে পাঠিয়েছে পুলিশ। বুধবার (১০ জুলাই) দুপুর ২টায় ময়মনসিংহের চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে পাঠায় হালুয়াঘাট থানা পুলিশ।

মামলায় উপজেলার পশ্চিম কালিয়ানীকান্দা গ্রামের বাসিন্দা মো. সুরুজ আলীর ছেলে ঈসমাইল হোসেনকে একমাত্র আসামি করা হয়।

এর আগে আজ সকালে স্থানীয় খন্দকপাড়া গ্রামের বাসিন্দা ভুক্তভোগী কিশোরীর মা বাদী হয়ে এই মামলাটি দায়ের করেন।

হালুয়াঘাট থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মাহাবুবুল হক এসব তথ‍্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, ভুক্তভোগী কিশোরী ঈসমাইল হোসেনের বাড়িতে গৃহকর্মীর কাজ করার সময় বিয়ের প্রলোভনে তাকে ধর্ষণ করেন ঈসমাইল। সর্বশেষ গত ৬ জুলাই রাতে ভুক্তভোগীর বাড়িতে গিয়ে ঈসমাইল ফের কিশোরীকে ধর্ষণ করেন। এ সময় বিয়ের কথা বললে ঈসমাইল হোসেন বিয়ে করবে না বলে হুমকি দেন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা হালুয়াঘাট থানা পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) মো. শরীফুল ইসলাম জানান, থানায় অভিযোগ দায়ের হলে ঈসমাইল প্রথমে ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে ওই কিশোরীকে নিজের দ্বিতীয় স্ত্রী দাবি করেন। কিন্তু এ সংক্রান্ত কোনো প্রমাণ তিনি দেখাতে পারেননি। তাছাড়া ভুক্তভোগী অপ্রাপ্ত বয়স্ক। এরপর বাদীর অভিযোগ আমলে নিয়ে ২০০০ সালের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন (সংশোধনী-২০২০) এর ৯ (১) ধারায় মামলাটি রুজু করা হয়।


মতামত জানান :

 
 
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম