সংবাদ শিরোনাম

 

চারপাশে ফসলের খেত। মাঝখানে কমিউনিটি ক্লিনিক। নেই কোন সংযোগ সড়ক। আবাদি জমির আইল দিয়ে যেতে হয় হাসপাতালে। সামান্য বৃষ্টি হলে সৃষ্টি হয় চরম ভোগান্তির। বর্ষাকালে ক্লিনিকে যেতে হয় নৌকা দিয়ে। জামালপুর জেলার সরিষাবাড়ী উপজেলার কামরাবাদ ইউনিয়নের চর ধারাবর্ষা গ্রামের কমিউনিটি ক্লিনিকের চিত্র এটি। এখানে প্রাথমিক স্বাস্থ্যসেবা ও বিনামূল্যে ওষুধ মিললেও সড়কের অভাবে স্বাস্থ্যসেবা নিতে আসা মানুষের দুর্ভোগের শেষ নেই।

জানা যায়, ১৯৯৬ সালে তৎকালীন আওয়ামী লীগ সরকার প্রত্যন্ত অ লের মানুষের দোড়গোঁড়ায় স্বাস্থ্যসেবা পৌঁছে দেয়ার জন্য কমিউনিটি ক্লিনিক স্থাপন করেন। সরকার পরিবর্তনের কারণে বন্ধ হয়ে যায় এসব ক্লিনিক। ২০০৮ সালে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোট ক্ষমতায় আসার পর আবারও এসব কমিউনিটি ক্লিনিক চালু করা হয়।

এলাকাবাসী ও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সূত্রে জানা যায়, উপজেলার কামরাবাদ ইউনিয়নের চর ধারাবর্ষা গ্রামের হাসমত আলী ২০১৪ সালে কমিউনিটি স্বাস্থ্য ক্লিনিক নির্মাণ করার জন্য ৮ শতক জমি দেন। স্বাস্থ্য অধিদফতরের অর্থায়নে ২০ লাখ টাকা ব্যয়ে ক্লিনিকের নির্মাণ কাজ শেষ করা হয়। ২০১৫ সালের জুন মাসে চর ধারাবর্ষা কমিউনিটি স্বাস্থ্য ক্লিনিকটি গ্রামের মানুষদের চিকিৎসা সেবার জন্য চালু করা হয়। কিন্তু স্বাস্থ্য ক্লিনিকটি পাকা রাস্তা থেকে ২শ মিটার দূরে নিচু জায়গায় নির্মাণ করায় ও যাতায়াতের রাস্তা না থাকায় ৬ বছর ধরে চিকিৎসা সেবা চরমভাবে ব্যাহত হচ্ছে। চিকিৎসা নিতে আসা গ্রামের মানুষজনকে পাকা রাস্তা থেকে নেমে খেতের আইল দিয়ে স্বাস্থ্য ক্লিনিকে যেতে হয়। এছাড়াও বন্যা কবলিত এলাকায় ক্লিনিকটি নিচু জায়গায় হওয়ায় ক্ষেতে বন্যার পানি থাকায় তিন মাস চিকিৎসা বন্ধ থাকে। এলাকাবাসী ক্লিনিকটিতে চিকিৎসাসেবা নিশ্চিত করার দাবি জানিয়েছেন।

ধারাবর্ষা গ্রামের মোকাদ্দেশ আলী (৭০) জানান, খেতের আইল দিয়ে হাসপাতালে যেতে হয়। ফসলের জমির মধ্যে দিয়ে গেলে জমির মালিক বকাঝকা করে। সরকার আমাদের জন্য হাসপাতাল করে দিয়েছে। তবে হাসপাতালে যেতে না পারায় আমরা চিকিৎসা পাচ্ছি না।

চর ধারবর্ষা কমিউনিটি স্বাস্থ্য ক্লিনিকের (সিএইচসিপি) আছমাউল হোসনা জানান, এখানে প্রতিদিন ৪০-৫০ জন রোগী চিকিৎসা নিতে আসেন। কিন্তু যাতায়াতের সড়ক না থাকায় প্রতিদিন কষ্ট করে আসা যাওয়া করতে হয়। সড়ক না থাকায় ক্লিনিকে একবার কোন রোগী আসলে আর দ্বিতীয়বার আসতে চায় না।

স্থানীয় ধারাবর্ষা গ্রামের ইউপি সদস্য আলম মিয়া জানান, যাতায়াতের রাস্তা না থাকায় ৬ বছর ধরে গ্রামের মানুষ ক্লিনিকের স্বাস্থ্যসেবা থেকে বিরত হচ্ছে।

কামরাবাদ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান (ইউপি) মনসুর আলী খান বলেন, মাটির সংযোগ সড়ক নির্মাণের পরিকল্পনা করে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ। কিন্তু ফসলি জমির ওপর দিয়ে রাস্তা নির্মাণে বাঁধা দেন জমির মালিকেরা। কমিউনিটি ক্লিনিকে যাতায়াতের জন্য কেউ জমি না দেওয়ায় রাস্তা নির্মাণ করে দেওয়া সম্ভব হয়নি।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা গাজী রফিকুল হক বলেন, এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও উপজেলা চেয়ারম্যানের সাথে কথা বলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


মতামত জানান :

 
 
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম