সংবাদ শিরোনাম

 

নিজের আন্দোলনের সক্ষমতা নেই, অন্যদের আন্দোলনের ওপর বিএনপি ভর করে বলে অভিযোগ করেছেন ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। সর্বজনীন স্কিম ‘প্রত্যয়’ বাতিলের দাবিতে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকদের এবং সরকারি চাকরিতে কোটা বহালের প্রতিবাদে শিক্ষার্থীদের চলমান আন্দোলনের ওপর ভর করে বিএনপি স্বপ্ন দেখছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

বুধবার (৩ জুলাই) বিকেলে সাভারের হেমায়েতপুর বাসস্ট্যান্ডে এক সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। আওয়ামী লীগের ৭৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে এই সমাবেশের আয়োজন করে ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগ।

বিএনপির আন্দোলনকে মরা গাঙের সঙ্গে তুলনা করে ওবায়দুল কাদের বলেন, তারা নিজেরা আন্দোলন করতে পারে না, শিক্ষকদের আন্দোলনে, ছাত্রদের আন্দোলনে ভর করে।
বিএনপির সমালোচনা করে তিনি বলেন, ‘শিক্ষকদের আন্দোলন, কোটা আন্দোলন, গতবারও ছিল, এবারও আছে। অন্যদের আন্দোলনের ওপর ভর করছে বিএনপি৷ অন্যদের ওপর ভর করে আন্দোলন হয়? কোনো দিনও হয় না।’

বিএনপির মনের জোর কমে গেছে এবং গলার জোর বেড়ে গেছে দাবি করে তিনি বলেন, ‘একটা কথা আছে, মানুষের শক্তি যত কমে, মুখের বিষ তত উগ্র হয়৷ বিএনপি নেতাদের মুখে কোনো ট্যাক্স নেই। মুখে কোনো লাগাম নেই। লাগাম দিয়ে টেনে কোনো লাভ নাই।’
বিএনপিকে বেপরোয়া চালক আখ্যা দিয়ে তিনি বলেন, ‘গাড়ির চালক বেপরোয়া হলে যে অবস্থা হয়, রাজনীতিতে বিএনপি হচ্ছে বেপরোয়া চালক। কখন কী দুর্ঘটনা ঘটায় বসে!’

খালেদা জিয়া চালায় নাকি বিএনপি চলে লন্ডন থেকে রিমোট কন্ট্রোলে বলে মন্তব্য করে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, সড়ক, নদী পথে নয় আকাশ পথে বিএনপি চলে। মধ্যরাতে ফরমান, নেতারা দিনের আরাম, রাতের ঘুম হারাম হয়ে গেছে। কখন তারেক রহমানের ডাক আসে। কখন কার চাকরি নট হয়ে যায় কেউ জানে না। ফখরুল সাহেবও শান্তিতে নাই, বড় বড় নেতারা সবাই আতঙ্কে আছে, তারেক আতঙ্ক। কখন কার চেয়ার খেয়ে ফেলে সেই ভয়ে সবাই থর থর করে কাঁপছে।

কাদের বলেন, ‘মধ্যরাতের ফরমান। নেতাদের দিনের আরাম, রাতের ঘুম হারাম হয়ে গেছে। কখন তারেক রহমানের ডাক আসে। কখন কার চাকরি নট হয়ে যায়। ফখরুলও আতঙ্কে আছে৷ কখন কার গদি চলে যায়! তারেকের ডাক আসে মাঝ রাতে। এজন্য নেতারা রাতে ঘুমায় না।’
আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘তাদের নতুন কমিটি কেউ জানে? তাদের নতুন কমিটি ভুয়া৷’ বিএনপির আন্দোলনের মরা গাঙ্গে জোয়ার আর আসে না বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

নেতাকর্মীদের অভয় দিয়ে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘রিজার্ভ বেড়ে যাচ্ছে, রেমিট্যান্স বেড়ে যাচ্ছে। ভয়ের কারণ নেই। ইনশাআল্লাহ শেখ হাসিনার চেষ্টায় জিনিসপত্রের দামও কমে যাবে।’
সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘২০৪১, তারপর ২১০০ সাল। শেখ হাসিনার টার্গেট অনেক লম্বা। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা। আমরা তার নেতৃত্বে সোনার বাংলা গড়ার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।’

কাদের বলেন, ‘আবারও খেলা হবে৷ দুর্নীতি, অর্থপাচার, স্বৈরাচারের বিরদ্ধে৷ আমরা সবাই মিলে দুর্নীতির বিরুদ্ধে লড়ব৷ শেখ হাসিনার যে অঙ্গীকার, সে অঙ্গীকার আমরা অক্ষরে অক্ষরে পূরণ করে ছাড়ব।’

ওবায়দুল কাদের বলেন, গাড়ির চালক বেপরোয়া হলে যে অবস্থা হয় রাজনীতিতে বিএনপির এখন এই অবস্থা। কখন কোথায় দুর্ঘটনা ঘটিয়ে বসে বলা যায় না। বিএনপি চলে? নাকি কেউ চালায়।
সভায় সভাপতিত্ব করছেন ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি বেনজির আহমদ ও সঞ্চালনা করছেন সাধারণ সম্পাদক পনিরুজ্জামা তরুন।


মতামত জানান :

 
 
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম