সংবাদ শিরোনাম

 

ময়মনসিংহ-৩ সংসদীয় আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী সোমনাথ সাহার নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ এনে প্রধান নির্বাচন কমিশনারকে (সিইসি) চিঠি দিয়েছেন ওই আসনের আওয়ামী লীগ প্রার্থী আমি নিলুফার আনজুম পপি।

সোমবার (২৫ ডিসেম্বর) দুপুরে ইসিতে এসে তিনি এ চিঠি দেন।

 

চিঠিতে তিনি উল্লেখ করেন, এ আসনে ট্রাক প্রতীক নিয়ে লড়ছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী সোমনাথ সাহা। সম্প্রতি তিনি বিভিন্নভাবে গোপনে ও প্রকাশ্যে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে নগদ অর্থ দেওয়ার মাধ্যমে নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন করেছেন। স্বতন্ত্র প্রার্থী সোমনাথ সাহার পক্ষে, মো. দেলোয়ার হোসেন বিভিন্ন ধর্মীয় ও সামাজিক প্রতিষ্ঠানে নগদ অর্থ অনুদান দেন, যা নির্বাচনী আচরণবিধির বিধি-৩ এর পরিপন্থী।

বিধি-৩ অনুযায়ী, কোনো প্রার্থী কিংবা তার পক্ষ থেকে অন্য কোনো ব্যক্তি নির্বাচন-পূর্ব সময়ে ওই প্রার্থীর নির্বাচনী এলাকায় বসবাসকারী কোনো ব্যক্তি, গোষ্ঠী কিংবা উক্ত এলাকা বা অন্যত্র অবস্থিত কোনো প্রতিষ্ঠানে প্রকাশ্যে বা গোপনে কোন প্রকার চাঁদা বা অনুদান দিতে বা দেওয়ার অঙ্গীকার করতে পারবেন না।

 

চিঠিতে আরও বলা হয়, মো. দেলোয়ার হোসেন গৌরীপুরের সিধলা ইউনিয়নে সোমনাথ সাহার নির্বাচনী প্রচারণা কমিটির সভাপতি, এবং সহনাটি ইউনিয়নে সোমনাথ সাহার নির্বাচনের সার্বিক দায়িত্বে আছেন তিনি। মো. দেলোয়ার হোসেন এ বিষয়ে তার ও সোমনাথ সাহার সম্পৃক্ততা মেনে নিয়েছেন। যদিও সোমনাথ সাহা দাবি করেছেন তিনি এ বিষয়ে কিছু জানেন না। কিন্তু ফেসবুক পোস্টে তাকে ট্যাগ করা হয়েছে অর্থাৎ এ বিষয়ে তিনি অবগত ছিলেন।

 

চিঠিতে আরও বলা হয়, সোমনাথ সাহার পক্ষে গৌরীপুরের ভাংনামারি ইউনিয়নে তিনটি ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে নগদ অর্থ অনুদান প্রদান করেছেন মো. সারোয়ার আকন্দ। তার প্রদান করা অর্থের খামটি সোমনাথ সাহার দাপ্তরিক খাম, যেখানে সোমনাথ সাহার নাম মুদ্রণ করা আছে মো. সারোয়ার আকন্দের ফেসবুক পোস্টেও সোমনাথ সাহাকে ট্যাগ করা হয়েছে। অর্থাৎ এ বিষয়ে তিনি অবগত ছিলেন।

মো. সারোয়ার আকন্দ ও মো. দেলোয়ার হোসেনের মাধ্যমে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে অনুদান প্রেরণ করার মাধ্যমে স্বতন্ত্র প্রার্থী সোমনাথ সাহা সরাসরিভাবে নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন করেছেন বলেও এতে উল্লেখ করা হয়।

 

আনজুম পপি বলেন, ‘আমার আসনে ৬ জন স্বতন্ত্র প্রার্থী আছেন। অনিয়মের বিষয়ে অভিযোগ দিতে এসেছি। আশা করছি নির্বাচন কমিশন ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন। এ অনিয়মের কারণে অন্যান্য দলীয় প্রার্থীরা ইনসিকিউরটিতে ভুগছেন। ভোটারদের বিভ্রান্ত করা হচ্ছে। এতে নির্বাচনী পরিবেশ একটু ব্যাহত হচ্ছে।’

তিনি বলেন, ‘সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে কিছু ছবি আছে সেগুলো প্রমাণ হিসেবে দিয়েছি। আশা করছি ইসি তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবেন।’

 


মতামত জানান :

 
 
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম