সংবাদ শিরোনাম

 

ময়মনসিংহ সদরে রাজিয়া খাতুন (৩০) নামের এক নারীর বিবস্ত্র মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

শুক্রবার (১৪ জুন) দুপুর ১২টার দিকে উপজেলার চর নিলক্ষীয়া ইউনিয়নের সাঁথিয়াপাড়া উজানপাড়া এলাকার একটি পুকুর থেকে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়।

নিহত রাজিয়া ওই এলাকার মৃত তাহের মিস্ত্রির মেয়ে। তিনি মানসিক ভারসাম্যহীন ছিলেন বলে জানা গেছে।

ময়মনসিংহ কোতোয়ালি মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আনোয়ার হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, সকালে সাঁথিয়াপাড়ার উজানপাড়া এলাকার একটি পুকুরে বিবস্ত্র মরদেহ ভাসতে দেখে স্থানীয়রা থানায় খবর দেন। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠায়।

নিহত রাজিয়ার মা আম্বিয়া খাতুন বলেন, ‘আমার মেয়ে বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) দুপুরের খাবার খেয়ে বাড়ি থেকে বের হয়। এরপর রাতেও বাড়ি না ফেরায় অনেক খোঁজাখুঁজি করি। কিন্তু কোথাও তার সন্ধান পাওয়া যায়নি। পরে সকালে খবর পাই পুকুরে মরদেহ ভাসছে। তার মরদেহ উদ্ধারের সময় শরীরে কোনো কাপড় ছিল না।’

ধারণা করা হচ্ছে, রাজিয়াকে ধর্ষণের পর শ্বাসরোধে হত্যা করে মরদেহ পুকুরে ফেলে গেছে দুর্বৃত্তরা।

পুলিশ পরিদর্শক আনোয়ার হোসেন বলেন, ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছে কি না বা কীভাবে হত্যা করা হয়েছে তা ময়নাতদন্তের পর বলা যাবে। এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।


মতামত জানান :

 
 
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম