সংবাদ শিরোনাম

 

ভৈরব প্রতিনিধি : ভৈরবের ভবানীপুর গ্রামে দুদল গ্রামবাসীর সংঘর্ষে প্রায় ৩০ জন আহত হয়েছেন। আজ মঙ্গলবার সকালে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে হুমায়ূন ও জয়নাল গ্রুপের মধ্য এ সংঘর্ষ হয় বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়।

সংঘর্ষে গুরুতর আহত কয়েকজনকে চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। এছাড়া আহত শফিউল­াহ (২০), আরশ (১৬), শরীফ (১৫), শেখ জয় (১৭), আল আমিন (১৮), সাব্বির (১০) ও মামুন (২৫) ভৈরব উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

অন্যান্য আহতদেরকে বাজিতপুর জহিরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজে পাঠানো হয়। সংঘর্ষে খবর পেয়ে ভৈরব থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, ভবানীপুর গ্রামের হুমায়ূন গ্রুপ ও জয়নাল গ্রুপ পূর্ব শত্রুতার জের ধরে আজ সকাল ৭টার দিকে দেশীয় অস্ত্র, বল্ল­ম ও লাঠি নিয়ে মাঠে নামে। এসময় উভয় পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। উভয় পক্ষের প্রায় ৩০ জন আহত হন।

উল্লেখ্য, এই গ্রামে গত এক বছরে দুই পক্ষের মধ্য কমপক্ষে ৮-১০ বার সংঘর্ষ হয়েছে। ইতোপূর্বে এসব সংঘর্ষে উভয় পক্ষের ২ জন নিহতসহ প্রায় দুই শতাধিক মানুষ আহত হয়েছেন।

শুধু তাই নয় দুই পক্ষেরই কমপক্ষে শতাধিক ঘরবাড়ী ভাঙচুর ও লুটপাট হয়েছে। এসব ঘটনায় ভৈরব থানায় উভয় পক্ষের  একাধিক মামলাও হয়েছে। পুলিশ বিভিন্ন মামলায় ৫০-৬০ জনকে গ্রেফতারও করেছে।

এলাকার চেয়ারম্যান, মেম্বার, মাতাব্বরগণসহ স্থানীয় আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক এবং অন্যান্য নেতৃবৃন্দ কয়েক দফা সালিশী বৈঠক করেও ভবানীপুরের দুই গ্রুপের সংঘর্ষ থামাতে পারেনি।

ভৈরব থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বদরুল আলম তালুকদার জানান, ভবানীপুর একটি জঙ্গি গ্রাম। ইতোপূর্বে একাধিকবার এই গ্রামে সংঘর্ষ হয়েছে। হুমায়ূন গ্রুপ ও জয়নাল গ্রুপ পূর্ব শত্রুতার জের ধরে বার বার এই সংঘর্ষ করছে। আজকের সংঘর্ষও পূর্ব শত্রুতার জের ধরে হয়েছে। পুলিশ খবর পেয়ে পরিস্থিতি শান্ত করেছে।


মতামত জানান :

 
 
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম