সংবাদ শিরোনাম

 

মধ্য আকাশে হার্ট অ্যাটাক ও ব্রেন স্ট্রোকে অসুস্থ বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের পাইলট ক্যাপ্টেন নওশাদ কাইউম এখনো জীবিত আছেন। তিনি ভেন্টিলেশনে আছেন। তার মেডিকেল বোর্ডের সদস্যরা পরিবারের সঙ্গে আলাপ করে তার ভেন্টিলেশন খোলার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবেন।

আজ রোববার (২৯ আগস্ট) দুপুর ২টা ৫৫ মিনিটে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (এমডি ও সিইও) আবু সালেহ মোস্তফা কামাল ঢাকা পোস্টকে বলেন, ‘বিভিন্ন জায়গা থেকে মৃত্যুর খবর শোনা গেলেও যতদূর জানি তিনি এখনো জীবিত আছেন। ভেন্টিলেশনে আছেন। তার চিকিৎসায় হাসপাতালে একটি মেডিকেল বোর্ড গঠন করা হয়েছে। বোর্ডের সিদ্ধান্ত জানার পর আমরা তার শারীরিক অবস্থার বিষয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে বক্তব্য দেবো।’

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ক্যাপ্টেন নওশাদের মৃত্যুর গুজব ছড়িয়ে ছড়িয়ে যাওয়ার বিষয়ে বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স পাইলট অ্যাসোসিয়েশনের (বাপা) সভাপতি ক্যাপ্টেন মাহবুবুর রহমান দুপুর আড়াইটায় বলেন, ‘ক্যাপ্টেন নওশাদ এখনো মারা যাননি। তার ভেন্টিলেশনও খোলা হয়নি। নওশাদের দুই বোন হাসপাতালে যাবেন। চিকিৎসক বোর্ড নওশাদের দুই বোনের সঙ্গে মিটিং করে ভেন্টিলেশন খোলার বিষয়ে মতামত জানাবেন। তবে তিনি এখনো জীবিত।’

বেসামরিক বিমান চলাচল ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের একটি সূত্র জানায়, ‘রোববার সকাল থেকে ক্যাপ্টেন নওশাদের শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটে। তার দেহের বেশ কয়েকটি অর্গান (অঙ্গ) কাজ করছে না। এক কথায় ক্লিনিক্যাল ডেথ বলা যেতে পারে। বর্তমানে তিনি সম্পূর্ণ ভেন্টিলেশন নির্ভর। ভেন্টিলেশন খুলে দেওয়ার বিষয়ে পরিবার সিদ্ধান্ত জানালে পরবর্তী আপডেট জানা যাবে।’

এদিকে দুপুরে বিমানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও ড. আবু সালেহ মোস্তফা কামাল বলেন, তার জন্য হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ একটি মেডিক্যাল বোর্ড গঠন করেছে। বোর্ডের সিদ্ধান্ত এখনও জানানো হয়নি। ক্যাপ্টেন নওশাদের পরিবারের সদস্যরাও হাসপাতালে রয়েছেন বলেও জানান তিনি।

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের অসুস্থ পাইলট ক্যাপ্টেন নওশাদ আতাউল কাইয়ুমের উন্নত চিকিৎসা নিশ্চিতকরণে প্রয়োজনীয় সব সহযোগিতা প্রদানের আশ্বাস দিয়েছেন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মো. মাহবুব আলী। শনিবার ক্যাপ্টেন নওশাদ আতাউল কাইয়ুমের খোঁজ নেন তিনি।

প্রসঙ্গত, গত ২৭ আগস্ট মাস্কাট-ঢাকা রুটে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স-এর শিডিউল ফ্লাইট বিজি ০২২-এ মোট ১২৪ জন যাত্রী নিয়ে ঢাকা আসার পথে পাইলট ক্যাপ্টেন নওশাদ আতাউল কাইয়ুম হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়েন। এতে ভারতের মহারাষ্ট্রের নাগপুরের ড. বাবাসাহেব আম্বেদকর আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ফ্লাইটটি জরুরি অবতরণ করে। পরে তাকে নাগপুরের একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বর্তমানে তিনি সেখানে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

ক্যাপ্টেন নওশাদ আতাউল কাইয়ুম ১৯৭৭ সালের ১৭ অক্টোবর ঢাকায় জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ২০০২ সালের ২০ সেপ্টেম্বর বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সে পাইলট হিসেবে যোগদান করেন।


মতামত জানান :

 
 
আরও পড়ুন
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম