সংবাদ শিরোনাম

 

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, ‘বিএনপিটা বোধহয় বড় ভুল করলো। তারা একটা বড় দল ছিল কিন্তু ধ্বংস হয়ে যাবে। এটা খারাপ দিক। তাদের নেতৃত্বে পরিপক্বতার কারণে এমনটা হয়েছে। তারা এখন আর রাজনৈতিক দল নয়, সন্ত্রাসী দল।’

সোমবার (২৫ ডিসেম্বর) সকালে সিলেট নগরীর নয়া সড়কের প্রেসবিটারিয়ান চার্চে বড়দিন উপলক্ষে কেক কাটা অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘সন্ত্রাসীরা কখনও বাংলাদেশে জয়লাভ করেনি। এরশাদ শিকদারের দলও এদেশে জয়লাভ করেনি। বাংলাদেশের জনগণ সন্ত্রাসীদের গ্রহণ করে না।’

মন্ত্রী আরও বলেন, ‘আমরা সব সময় প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক নির্বাচন পছন্দ করি। নির্বাচনে যেই প্রার্থী থাকে, আমরা আশা করি প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক নির্বাচন হোক।

নির্বাচনে ভোটারদের সাড়া প্রসঙ্গে ড. মোমেন বলেন, ‘অনেক মানুষ এসে আমার সঙ্গে দেখা করছে। তারা সবাই ভোটকেন্দ্রে যাবে। বিপুল সাড়া পাচ্ছি। কোনো সন্দেহ নেই। সবাই ৭ তারিখে ভোট দিবে। সিলেটের লোকেরা সব সময়ই ভোট দেয়। আর এবার একটু বেশি ভোট দিবে বলে আমার বিশ্বাস।’

পররাষ্ট্রমন্ত্রী আরও বলেন, বাংলাদেশ উন্নয়ন ও বাস্তববাদী দল। গত ১৫ বছর যা উন্নয়ন হয়েছে তা শেখ হাসিনার কারণে হয়েছে। যেখানে যা দরকার সে কাজটুকু করে। বাংলাদেশে বেকারের সংখ্যা খুবই কম। অন্য দেশের তুলনায় একেবারে নগণ্য। তবে কিছু শিক্ষিত বেকার রয়েছে। তাদের প্রশিক্ষিত করা হচ্ছে। আগামীতে প্রশিক্ষিত লোক বিদেশে পাঠানো হবে।

এর আগে খ্রিষ্টান সম্প্রদায়ের প্রধান ধর্মীয় উৎসব বড়দিন উপলক্ষে নগরীর নয়াসড়কের প্রেসবিটারিয়ান চার্চে কেক কাটার মধ্য দিয়ে শুভেচ্ছা বিনিময় করেন এ কে আব্দুল মোমেন।

এসময় তিনি বলেন, আমাদের সংবিধানে সব ধর্ম ও বর্ণের মানুষের সমানাধিকার নিশ্চিত করা হয়েছে। আমরা বিশ্বাস করি-ধর্ম যার যার, উৎসব সবার। বাংলাদেশ নামক রাষ্ট্রটি আমাদের সবার। তাই সব শ্রেণিপেশার জনগণের উন্নয়নই আমাদের প্রধান লক্ষ্য। বড়দিন উদযাপনের আনন্দ মানুষের মধ্যে যেন সত্যিকার মানবতাকে জাগ্রত করে; মহামানব যিশু যে প্রেম, শান্তি ও সম্প্রীতির শিক্ষা প্রচার করেছেন, তার যথার্থ প্রতিফলন যেন সবার জীবনে ঘটে।

এসময় সিসিক মেয়র আনোয়ারুজ্জামন চৌধুরী, সিলেট জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাডবোকেট নাসির উদ্দিন খান, মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেন, সহ-সভাপতি ফয়জুল আনোয়ার আলাওর, সহ-সভাপতি প্রদীপ ভট্টাচার্য, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও সিসিক কাউন্সিলর আজাদুর রহমান আজাদ, সাংগঠনিক সম্পাদক ডা. আরমান আহমদ শিপলু প্রমুখ।

 


মতামত জানান :

 
 
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম