সংবাদ শিরোনাম

 

 

নেত্রকোনার দুর্গাপুর উপজেলায় স্বামীর পরকীয়ার জেরে তাসলিমা আক্তার (২৫) নামের এক নারী বিষপান করে আত্মহত্যা করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত স্বামী মো. সুলতান মিয়াসহ (২৬) চারজনকে আসামি করে দুর্গাপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলার পরই সুলতাল মিয়াকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

 

শনিবার (২ ডিসেম্বর) বিকেলে অভিযুক্ত স্বামীকে তার নিজ বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এর আগে বৃহস্পতিবার দিনগত রাতে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তাসলিমা।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, আট বছর আগে দুর্গাপুর পৌর শহরের দশাল ঠাকুরবাড়ি কান্দা এলাকার সুলতান মিয়ার সঙ্গে বিয়ে হয় তাসলিমার। দুই সন্তান নিয়ে তাদের সংসার ভালোই চলছিল। কিন্তু বছর তিনেক আগে একই এলাকার ঝুমা আক্তার নামে এক নারীর সঙ্গে পরকীয়ার সম্পর্কে জড়ান সুলতান মিয়া। তাসলিমা বিষয়টি জানার পর স্বামীকে সেই সম্পর্ক থেকে ফেরাতে চেষ্টা করেন। এ নিয়ে তিনি মারধরের শিকারও হন।

 

ঘটনার দিন বুধবার (২৯ নভেম্বর) দুপুরে সুলতান মিয়া ও ঝুমা আক্তারকে আপত্তিকর অবস্থায় দেখে ফেলেন তাসলিমা। এ নিয়ে বাগবিতণ্ডা হলে ওইদিন সুলতান তার স্ত্রীকে মারধর করেন। একপর্যায়ে স্বামীসহ অন্য অভিযুক্তরা তাকে আত্মহত্যার প্ররোচনা দেন। পরে নিজ ঘরে বিষপান করে আত্মহত্যার চেষ্টা চালান তাসলিমা।

বিষপানের বিষয়টি টের পেয়ে তাকে উদ্ধার করে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এবং পরে অবস্থার অবনতি হলে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। বৃহস্পতিবার (৩০ নভেম্বর) রাতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি।

এ ঘটনায় শনিবার (২ ডিসেম্বর) দুপুরে নিহত তাসলিমার বড় ভাই হারুন মিয়া বাদী হয়ে দুর্গাপুর থানায় একটি মামলা করেন। পরে বিকেলে অভিযুক্ত স্বামীকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

এ বিষয়ে দুর্গাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি/তদন্ত) মোহাম্মদ নূরুল আলম জানান, আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগে নিহতের ভাই বাদী হয়ে থানায় মামলা করেছেন। অভিযুক্ত প্রধান আসামি সুলতান মিয়াকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

 


মতামত জানান :

 
 
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম