সংবাদ শিরোনাম

 

বিএনপিকে এখন ছাড় দেওয়া হচ্ছে কিন্তু আগামী ডিসেম্বরে আর ছাড় দেওয়া হবে না বলে স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

শনিবার(৫ নভেম্বর) জনসমাবেশে সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এ কথা বলেন ৷

ওবায়দুল কাদের বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের উদ্দেশ্যে বলেন, তত্ত্বাবধায়ক সরকারের ভূত মাথা থেকে নামান।
তত্ত্বাবধায়ক সরকার আদালত বাতিল করে দিয়েছেন। এ তত্ত্বাবধায়ক সরকার জাদুঘরে চলে গেছে। তত্ত্বাবধায়ক সরকার আর ফিরে আসবে না। এখন ছাড় দিচ্ছি, শেখ হাসিনা এখন ছাড় দিচ্ছেন। কিন্তু ডিসেম্বরে ছেড়ে দেবো না।
ডিসেম্বরে এই রাজপথ মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তির দখলে থাকবে, বিএনপির থাকবে না। ডিসেম্বরের রাজপথ আমাদের, আওয়ামী লীগের রাজপথ।

এ সময় ওবায়দুল কাদের আওয়ামী লীগের নেতা কর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, খেলা হবে প্রস্তুত হয়ে যান।
ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের উদ্যোগে রাজধানীর মধ্য বাড্ডা ইউলুপের কাছে প্রধান সড়কে এ সমাবেশ আয়োজন করা হয়।

বিএনপি জামায়াতের দেশ-বিরোধী ষড়যন্ত্র, নৈরাজ্য সহিংসতা ও আগুন সন্ত্রাসের প্রতিবাদে এ শান্তি সমাবেশ ও প্রতিবাদ মিছিলের আয়োজন করা হয়েছে৷

বিএনপি সমাবেশের দিনে আওয়ামী লীগও রাজপথে ব্যাপক জনসমাগম ঘটানোর কর্মসূচির সিদ্ধান্ত নিয়েছে ৷ শনিবার একই সময় চলছে বরিশালে বিএনপির বিভাগীয় সমাবেশ ৷ এর আগে ২৯ অক্টোবর রংপুরে বিএনপির বিভাগীয় সমাবেশের দিন রাজধানীর আগারগাঁও-এর পুরোনো বাণিজ্য মেলার মাঠে ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনে ব্যাপক জনসমাগম ঘটানো হয়। সম্মেলনের মধ্য দিয়ে দলের কর্মী সমর্থকদের শো ডাউন ও সাংগঠনিক শক্তির প্রদর্শন করে দলটি ৷

এরপর আজ শনিবার ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগ এ সমাবেশের আয়োজন করেছে৷ সমাবেশ শেষে প্রতিবাদ মিছিল বের হয়ে গুলশান নতুন বাজার গিয়ে শেষ হবে ৷ দুপুর থেকেই ঢাকা মহানগর উত্তরের বিভিন্ন এলাকা থেকে নেতাকর্মীরা আসেন৷ সমাবেশস্থলটি জনসমুদ্রে পরিণত হয়েছে।

সমাবেশে সভাপতিত্ব করছেন ঢাকা উত্তর আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ বজলুর রহমান ৷ সভা পরিচালনা করছেন ঢাকা উত্তর আ. লীগের সাধারণ সম্পাদক এস এ মান্নান কচি ৷

সমাবেশ আরও বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের সভাপতি মণ্ডলীর সদস্য অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ খ ম বাহা উদ্দিন নাসিম দপ্তর সম্পাদক ও প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া, স্থানীয় সংসদ সদস্য এ কে এম রহমতুল্লাহ ও মহানগরের নেতারা।


মতামত জানান :

 
 
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম