সংবাদ শিরোনাম

 

ঈদুল আজহা ও গ্রীষ্মকালীন অবকাশের কারণে গত ১৩ জুন থেকে ২০ দিন বন্ধ ছিল প্রাথমিক বিদ্যালয়। লম্বা ছুটি শেষে আজ থেকে খুলেছে প্রাথমিক বিদ্যালয়।
বুধবার (৩ জুলাই) যথারীতি শুরু হচ্ছে পাঠদান। তবে সিলেটসহ দেশের বেশ কিছু এলাকায় বন্যা হওয়ায় ওইসব এলাকায় স্কুলে পাঠদান বন্ধ রয়েছে বলে জানা গেছে।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব ফরিদ আহাম্মদ জানিয়েছেন, প্রাথমিক বিদ্যালয় খুলে দেওয়া হয়েছে আজ। তবে দেশের কিছু অঞ্চলে বন্যা দেখা দিয়েছে। সেসব এলাকায় স্থানীয়ভাবে সমন্বয় করে বিদ্যালয় বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেবে। পরে শিখন ঘাটতি পূরণের জন্য শুক্রবার ও শনিবার ক্লাস করে তা পুষিয়ে নেবে। দুর্যোগকালীন বিদ্যালয়ের প্রতি এমন নির্দেশনা আগেই দেওয়া হয়েছে।’

সিলেট জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা সাখাওয়াত বলেন, যেসব জায়গায় বন্যার পানি উঠেছে সেসব জায়গায় স্কুলের পাঠদান বন্ধ রয়েছে। বন্যা পরিস্থিতি উন্নতি হলে পাঠদানের বিষয়ে সিদ্ধান্ত হবে।

শিক্ষাপঞ্জি অনুযায়ী প্রাথমিক, নিম্ন মাধ্যমিক ও মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে এবার পবিত্র ঈদুল আজহা ও গ্রীষ্মকালীন ছুটি শুরু হয়েছে ১৩ জুন, যা চলার কথা ২ জুলাই পর্যন্ত। কিন্তু নিম্নমাধ্যমিক ও মাধ্যমিক পর্যায়ে সেই ছুটি কমিয়ে গত ২৬ জুন খুলে দিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। এই ছুটি সংক্ষিপ্ত করার ব্যাখ্যাও দেয় মন্ত্রণালয়।

প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ঈদুল আজহা ও গ্রীষ্মকালীন ছুটি বহাল থাকলেও নিম্নমাধ্যমিক ও মাধ্যমিক স্তরের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি সংক্ষিপ্ত করার বিষয়ে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের দেওয়া যুক্তিমতে, অতি শীত ও অতি তাপপ্রবাহের কারণে বছরব্যাপী কমেছে পাঠদানের কর্মদিবস। এখন থেকে শুক্রবারের পাশাপাশি শনিবারও সাপ্তাহিক ছুটি থাকবে। ফলে কর্মদিবস আরও কমে যাচ্ছে। তাই এবারের গ্রীষ্মের ছুটি এক সপ্তাহ কমিয়ে দেওয়া হয়।


মতামত জানান :

 
 
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম