সংবাদ শিরোনাম

 

আরেকটি দেশের সহায়তায় সরকার ক্ষমতায় টিকে আছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য সেলিমা রহমান। তিনি বলেন, দেশ পরাধীন হতে চলেছে। দেশের স্বাধীনতা আজ প্রশ্নবিদ্ধ। বর্তমান সরকার বিনা নির্বাচনের মাধ্যমে জোর করে আরেকটি দেশের সহায়তায় ক্ষমতা দখল করে আছে। বাংলাদেশের মানুষের বুকের ওপর পা রেখে উন্নয়নের নামে তারা কোটি কোটি টাকা বিদেশে পাচার করছে।

সোমবার (১ জুলাই) বিকেল ৫টায় ময়মনসিংহ নগরীর হরিকিশোর রায় রোডস্থ বিএনপি কার্যালয়ের সামনের সড়কে বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে আয়োজিত সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

সেলিমা রহমান বলেন, সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দুইবার ভারত সফরে গিয়ে কী করেছেন? চুক্তি ছিল ক্ষমতায় বসালে সবকিছু দিয়ে দেব। তাই অসম চুক্তি করে দেশের নিরাপত্তা বিঘ্নিত করে বাংলাদেশের স্বার্থের বাইরে বাংলাদেশকে অন্য দেশের দাস বানানোর চেষ্টা করছে। কিন্তু আমরা দেশের স্বাধীনতা ধ্বংস করতে দেব না।

তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশের জনগণকে আহ্বান জানাচ্ছি- আপনারা যেমনিভাবে এই সরকারের নির্বাচন বর্জন করেছেন, তেমনিভাবে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য আমাদের সঙ্গে রাজপথে নেমে আসুন। আমাদের নেত্রীর মুক্তির লড়াই শুরু হয়েছে। এই লড়াই থামবে না, যতদিন না আমরা নেত্রীকে মুক্ত করতে পারব। খালেদা জিয়া মানেই গণতন্ত্রের মুক্তি, স্বাধীনতার মুক্তি। আমরা জানি আমাদের আপসহীন নেত্রীকে চক্রান্ত করে তারা মেরে ফেলার চেষ্টা করছে। আমাদের নেত্রীর মুক্তি না হলে এই আন্দোলন ভয়াবহ রূপ ধারণ করবে, এর পরিণতি ভালো হবে না। আমার নেত্রী আজ জেলখানায় মরতে বসেছে, আমরা তাকে মরতে দেব না। আল্লাহর কাছে ফরিয়াদ করি, আল্লাহ তুমি শেখ হাসিনার পতন ঘটাও। গ্রামেগঞ্জে খালেদা জিয়ার মুক্তির আওয়াজ উঠেছে। তাই আসুন আমরা সবাই প্রতিজ্ঞা করি দেশনেত্রীর মুক্তি না হওয়া পর্যন্ত আমরা কেউ রাজপথ ছাড়ব না।

সমাবেশে প্রধান বক্তার বক্তব্যে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স বলেন, বৃষ্টি-ঝড় উপেক্ষা করে আমরা রাজপথে নেমেছি। দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি না হওয়া পর্যন্ত রাজপথ ছাড়ব না। নেত্রীর মুক্তি মানেই গণতন্ত্রের মুক্তি, বাংলাদেশের মুক্তি।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বলেছেন, নেত্রী হারলে বাংলাদেশ হেরে যাবে, নেত্রী হাসলে বাংলাদেশ হাসে। এখন আমাদের খেলা শুরু হবে, ওবায়দুল কাদেরের আর খেলা চলবে না। ঝড়বৃষ্টি উপেক্ষা করেই আমরা নেত্রীর মুক্তি আন্দোলনে রাজপথে থাকব।

ময়মনসিংহ মহানগর, দক্ষিণ ও উত্তর জেলা বিএনপির যৌথ আয়োজনে অনুষ্ঠিত সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন ময়মনসিংহ মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক অধ্যাপক একেএম শফিকুল ইসলাম। এতে আরও বক্তব্য দেন বিএনপির স্বনির্ভর বিষয়ক সম্পাদক শিরিন সুলতানা, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক শাহ ওয়ারেস আলী মামুন, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আবু ওয়াহাব আকন্দ ওয়াহিদ, দক্ষিণ জেলা বিএনপির আহ্বায়ক ডা. মাহাবুবুর রহমান লিটন, উত্তর জেলা বিএনপির আহ্বায়ক অধ্যাপক এনায়েত উল্লাহ কালাম, দক্ষিণ জেলা বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক জাকির হোসেন বাবলু প্রমুখ।

সমাবেশ যৌথভাবে সঞ্চালনা করেন ময়মনসিংহ মহানগর বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক অধ্যাপক শেখ আমজাদ আলী, উত্তর জেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক মোতাহার হোসেন তালুকদার ও দক্ষিণ জেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক আলমগীর মাহমুদ আলম। এছাড়াও সমাবেশে ময়মনসিংহ মহানগর, উত্তর ও দক্ষিণ জেলা বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের শীর্ষ নেতারা বক্তব্য দেন।


মতামত জানান :

 
 
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম