সংবাদ শিরোনাম

 

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগরে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যানপ্রার্থী প্রীতি খন্দকার হালিমার খোঁজ পেয়েছে পুলিশ। তবে পুলিশের দাবি, আত্মগোপনে গিয়ে নিখোঁজের নাটক সাজিয়েছেন ওই নারী প্রার্থী।

বৃহস্পতিবার (৩০ মে) সকালে নারায়ণগঞ্জের কাঁচপুর এলাকা থেকে পুলিশ প্রীতি খন্দকার হালিমাকে উদ্ধার করে স্থানীয় থানা পুলিশ। পরে খবর দেওয়া হয় বিজয়নগর থানা পুলিশকে।

বিজয়নগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আসাদুল ইসলাম জানান, পুলিশ তার খোঁজ পেয়েছে নারায়ণগঞ্জের কাঁচপুর এলাকায়। পুলিশের একটি দল তাকে আনতে কাঁচপুরে গেছে। সন্ধ্যার মধ্যে তাকে ফিরিয়ে আনা হবে।

ওসি আরও বলেন, দুইজন নারী প্রীতি খন্দকার হালিমাকে পান খাইয়েছিলেন, এরপর আর কিছু মনে নেই – এমনটা বলা হয়েছে। তবে তিনি নিজেই আত্মগোপনে গিয়ে নিখোঁজের নাটক সাজিয়েছেন।

এর আগে প্রীতি খন্দকারের স্বামী মাসুদ খন্দকার জানিয়েছিলেন, আগামী ৫ জুন অনুষ্ঠিতব্য বিজয়নগর উপজেলা নির্বাচনে তার স্ত্রী মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে পদ্মফুল প্রতীক নিয়ে লড়াই করছেন। সার্ভার ত্রুটির কারণে প্রীতির মনোনয়ন জমা দিতে সমস্যা হয়। পরে হাইকোর্ট থেকে প্রার্থিতা ফিরে পান। মঙ্গলবার দুপুরে হরষপুর ইউনিয়নে দুইজন সহযোগীয় নিয়ে নির্বাচনী প্রচারণায় যান প্রীতি।

হরষপুরের ঋষি পাড়ায় ঢুকে প্রচার করা অবস্থায় দুজন নারী বাইরে আসেন আর প্রীতি ভোটারদের সঙ্গে ভেতরে কথা বলছিলেন। ২০ মিনিট পেরিয়ে গেলেও প্রীতি বের না হওয়ায় দুজন নারী ভেতরে যান। ভেতরে গিয়ে প্রীতিকে খুঁজে পাচ্ছিলেন না তারা। বিষয়টি সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাসহ থানার ওসিকে অবগত করা হয়। পরে তিনি এ বিষয়ে থানায় জিডি করেন। স্ত্রীকে গুম করা হয়ে থাকতে পারে বলে অভিযোগ করেন তিনি।


মতামত জানান :

 
 
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম