সংবাদ শিরোনাম

 

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, সব প্রার্থীকে নির্বাচনের আচরণবিধি মেনে চলতে হবে। ফাউল করলে খবর আছে।

আমরা কারো জন্য তদবির করবো না। নির্বাচনে যারা বাধা দেবে তারা আইনি ব্যবস্থার মুখোমুখি হবে।
তিনি বলেন, বিএনপির অসহযোগ, বাংলার জনগণ বিএনপির সঙ্গে অসহযোগ করবে। তারা আজকে প্ল্যান করছে, খাজনা দেবে না, ট্যাক্স দেবে না। তাদের কথা শুনে ঘোড়াও হাসে। বাংলাদেশের জনগণ তাদের এ আহ্বানে সাড়া দেবেনা।

 

 

শুক্রবার (২২ ডিসেম্বর) বিকেলে নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ের সামনে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে আয়োজিত পথসভায় মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

সেতুমন্ত্রী এলাকার ভোটারদের উদ্দেশ্য করে বলেন, আপনারা ভয় পাবেন না। নির্বাচন করতে হবে। আমাদের সংবিধানের ধারাবাহিকতা থাকে না। আবার ওয়ান ইলেভেনের মত অস্বাভাবিক সরকারের হাতে বাংলাদেশকে তুলে দেওয়ার ষড়যন্ত্র চলছে। নির্বাচনের দিন দলে দলে এসে সকাল-বিকেল ভোট দেবেন। জনগণের সঙ্গে, ভোটারদের সঙ্গে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা থাকবেন।

 

বিএনপিকে উদ্দেশ্য করে সেতুমন্ত্রী বলেন, বিএনপি নির্বাচনে নেই বলে, এখানে খেলোয়াড় নেই?। ১৮৯৬ জন খেলোয়াড় আছে। ফাইনাল খেলা হবে আগামী ৭ জানুয়ারি। বাংলাদেশের গণতন্ত্রকে বাঁচাতে হলে সংবিধানকে বাঁচাতে হবে, বাংলাদেশের স্বাধীনতাকে বাঁচাতে হলে, আওয়ামী লীগকে বাঁচাতে হবে। বাংলাদেশের উন্নয়ন অর্জনকে বাঁচাতে হলে ক্ষমতার মঞ্চে শেখ হাসিনার বিকল্প নেই।

 

তিনি আরও বলেন, বিএনপির পল্টন থেকে দৌড়াতে, দৌড়াতে পালিয়ে গেছে। অবরোধে কাজ হয়নি, অবরোধ ভুয়া। অবরোধে রাস্তায় জ্যাম বেড়ে গেছে। বিএনপি ফাউল করে লাল কার্ড খেয়েছে।

তারেক জিয়াকে ইঙ্গিত করে বলেন, এখন লন্ডন থেকে হাওয়া ভবনের চোরা। হাওয়া ভবনের ওই অর্থ পাচারকারী, চোরা, সেও বলে ট্যাক্স দেবে না। সাহস থাকেতো আসো বাংলার রাজপথে মোকাবেলা কর। টেমস নদীর পাড়ে বসে লম্বা লম্বা কথা। বিএনপিতে দণ্ডিত ছাড়া কি কোনো ভালো মানুষ নেই। খালেদা জিয়া দণ্ডিত, তার পরিবর্তে তারেক রহমান দণ্ডিত। দণ্ডিত ব্যক্তি মানে দুর্নীতি গ্রস্থ। এ নেতার পেছনে কারা থাকবে।

 

 

এ সময় উপস্থিত ছিলেন ফেনী-২ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন হাজারী, কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সাহাব উদ্দিন, কবিরহাট উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোহাম্মদ ইব্রাহীম, কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা খিজির হায়াত খান, সাবেক সাধারণ সম্পাদক নুরনবী চৌধুরী প্রমুখ।

 

পথসভায় সভাপতিত্ব করেন কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আব্দুল কাদের মির্জা। কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের উদ্যোগে এ পথসভার আয়োজন করা হয়।

 


মতামত জানান :

 
 
 
কপিরাইট © ময়মনসিংহ প্রতিদিন ডটকম - সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | উন্নয়নে হোস্টপিও.কম